Skip to main content

লেবুর ১২টি অবিশ্বাস্য ব্যবহার

ব্রেনের এই ১১টি তথ্য জানেন কি?

 

১.খায় বেশি কিন্তু ওজন কম!

 একটি স্বাভাবিক মানব মস্তিষ্কের ওজন পুরো দেহের ওজনের মাত্র ২ শতাংশ। কিন্তু মস্তিষ্ক দেহের পুরো শক্তি ও অক্সিজেনের ২০ শতাংশ একাই ভোগ করে।


২. মস্তিষ্কের প্রায় পুরোটাই পানি

 মস্তিষ্কের প্রায় ৭৩ ভাগই পানি। আপনার মনোযোগ, স্মৃতি সংরক্ষণ ও জ্ঞানীয় কর্মকাণ্ডের জন্য এটি মাত্র ২ শতাংশ জলবিয়োজন ঘটায়।

 

৩. মস্তিষ্কের ওজন কত?

 

একটি স্বাভাবিক মস্তিষ্কের ওজন ১.৩৬ কেজি। ওজনের ৬০ ভাগই চর্বি। মানবদেহের সবচেয়ে বেশি চর্বিযুক্ত অঙ্গ হল মস্তিষ্ক। দেহের ২০-২৫ শতাংশ কোলেস্টেরল থাকে মস্তিষ্কে। কোলেস্টেরল এর ঘাটতি থাকলে ব্রেন কোষ মারা যায়।

৪. মস্তিষ্কের কোষের সংখ্যা শুনে ভড়কে যাবেন না তো!

 মস্তিষ্কে ৮৬ বিলিয়ন পর্যন্ত কোষ থাকতে পারে

 

৫. নিউরোনের ক্ষমতার কাছে সুপার কম্পিউটারও অসহায়!

 

এক একটি নিউরন প্রতি সেকেন্ডে ১ হাজারের বেশি সিগন্যাল পাঠাতে পারে এবং ১০ হাজারেরও বেশি নিউরন কোষের সাথে যোগাযোগ করতে পারে। শস্য দানা পরিমাণ এক টুকরো ব্রেন-কোষে ১ লাখের মতো নিউরন এবং ১ বিলিয়ন সাইন্যাপস থাকে, এরা একে অপরের সাথে যোগাযোগ করতেই থাকে।

৬. অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ হয় যদি?

 নিরবচ্ছিন্ন অক্সিজেন সরবরাহ থাকতেই হবে। ৫ মিনিট অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ থাকলে বেশ কিছু ব্রেন-কোষ এর মৃত্যু ঘটবে। যার ফলে মস্তিষ্কের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যাবে।

 

৭. তরুণদের ব্রেন পরিপক্ক নয় মোটেও

 তরুণদের ব্রেন পরিপক্ক নয়। তাই তাদের ভুলের ব্যাপারে সাবধান। কারণ মানব মস্তিষ্ক ২৫ বছরের আগে পরিপক্কতা অর্জন করে না।

 

৮. ফরমুলা ১ রেসিং কার আপনার মাথার মধ্যে!

 

অবাক হচেছন? হ্যা, আপনার মাথার মধ্যে ফরমুলা ১ রেসিং কারের চেয়েও গতিশীল যান আছে, যারা ঘণ্টায় ২৬৮ মাইল বেগে ব্রেন-তথ্য আদান-প্রদান করে থাকে। 

 

৯. আপনার মস্তিষ্কে কিন্তু বিদ্যুৎ কেন্দ্রও আছে!

 

হ্যা, আপনার ব্রেন ১২-২৫ ওয়াট পর্যন্ত বিদ্যুত উৎপন্ন করতে সক্ষম। যা দিয়ে লো-ওয়াটের একটি এলইডি লাইট জ্বালিয়ে রাখা সম্ভব।

 

১০. র‍্যানডম থট জেনারেটর(দৈবচয়নে চিন্তা উৎপাদক)

 

একটি কারণে মস্তিষ্ককে বলা হয় র‍্যানডম থট জেনারেটর। অর্থাৎ মস্কিষ্ক দিনে প্রায় ৫০ হাজার চিন্তা তৈরি করতে পারে।

 

 

 

 

১১.  ছবি দেখতে কতক্ষণ লাগে?

 

শুধু চোখ দিয়ে কি ছবি দেখা সম্ভব? কখন-ই নয়। কারণ মস্তিষ্ক প্রক্রিয়া না করলে আপনি কখনোই ছবি দেখতে পারবেন না। চোখ দিয়ে তাকানোর পর সেই ছবিটি প্রক্রিয়া করে দশনউপযোগি করতে মস্তিষ্কের সময় লাগে মাত্র ১৩ মিলি সেকেন্ড। চোখের পলক ফেলতে যতক্ষণ লাগে তার চেয়েও কম সময়।

আমাদের নিউজস্টোরি ভালো লাগলে আপনার সোশ্যাল মিডিয়ার টাইমলাইন এ শেয়ার করুন। অন্যদেরকেও জানার সুযোগ দিন। আর এরকম আরো নিউজস্টোরি পেতে আমাদের পেজ এ লাইক দিন।

our Facebook Page

 


Comments

Popular posts from this blog

৯টি সাইট ভিজিট না করলে পস্তাবেন

১. RSOE EDIS এই ওয়েব সাইটের সার্ভিস দেখে আপনি হতবাক হয়ে যাবেন। অবিশ্বাস্য এই ম্যাপ-ভিত্তিক সাইট প্রতি মুহূর্তে পৃথিবীর কোথায় কী হচ্ছে, কোথায় জরুরী অবস্থা, কোথায় ভূমিকম্প হচ্ছে, কোথায় ভ্রমণে বিপদ আছে, কোথায় গাড়ি দুর্ঘটনা হয়েছে সবকিছুর রিয়েল-টাইম হালনাগাদ তথ্য জানাবে। চিহ্নিত এলাকাগুলো চাইলেই আপনি জুম করে দেখতে পারবেন।২. জীবন-যাপন ব্যয়ের তুলনা (Cost of Living Comparison)
আপনি যদি দেশের বাইরের অন্য কোনো শহরে বসবাসের পরিকল্পনা করে থাকেন, তাহলে প্রথমেই ঢু মারতে হবে এই ওয়েবসাইটে। পাশাপাশি দুটি বক্সে শুধু দুটি শহরের নাম লিখুন, সাথে সাথে দুই শহরের খরচের তফাৎ পেয়ে যাবেন। এটা আপনাকে দুই শহরের মুদি মালামালের দাম, হোটেল ভাড়া, রেস্তোরাঁয় খাওয়ার খরচের পার্থক্য তুলে ধরবে নিমিষেই।৩. আমাকে কেউ চুরি করে নি তো?
HaveIBeenPwned একটি সাধারণ টুল যা ব্যবহার করে আপনি জানতে পারবেন আপনার ইউজারনেই অথবা ই-মেইল অ্যাড্রেস কোনো হ্যাকার ভাঙতে পেড়েছে কি না। এরকম কোনো গন্ধ পেলে সাথে সাথে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নেবেন। অন্তত বছরে একবার হলেও প্রত্যেকের উচিত নিজ ই-মেইল বা ওয়েবসাইটের অথবা সোশ্যাল নেটওয়ার্কের ইউজার আইডি ও পাসও…

প্রাণিজগতের এই ১০টি তথ্য আপনি কখনোই জানতেন না

ইদুর  ইদুরের প্রজনন হার অনেক বেশি, মাত্র ২টি ইদুর ১৮ মাসে ১০ লাখ  পর্যন্ত আত্মীয়-স্বজন বানিয়ে ফেলতে সক্ষমনীলতিমি প্রাণিজগতে সবচেয়ে জোরে শব্দ করতে পারে নীলতিমি। এর শব্দের মাত্রা ১৮৮ ডেসিবেল। নীল তিমির ডাক ৮০০ কিলোমিটার দুর থেকেও শোনা যায়শুধুই কি ঘোড়া?  শুধু ঘোড়া নয়, গরুও দাঁড়িয়ে ঘুমায়।আর্কটিক জেলি ফিশ  দৈত্যাকার আর্কটিক জেলিফিশের কর্ষিকা ১১৮ ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়লোকাস্ট  লোকাস্ট এর পায়ের পেশী ঠিক একই ওজনের মানুষের পেশির তুলনা ১ হাজার গুণ বেশি শক্তিশালীসদা চঞ্চল হামিংবার্ড  হামিংবার্ড খুবই চটপটে ও চঞ্চল। কোনোরকমম ভারসাম্য না হারিয়েই এই পাখি সাবলীলভাবে পেছনের দিকেও উড়তে পারেগণ্ডার  গণ্ডারের শিং কিন্তু হাঁড় নয়, এটা এক ধরনের জটিল গঠনের চুল বটেহাঙ্গরের ডিম কত বড়!  পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় ডিম পাড়ে কোন প্রাণী? হাঙ্গর বললে বিশ্বাস হবে তো!সাপ  সাপ কিন্তু চোখ বন্ধ করেও দেখতে পায়। নেত্রপল্লব ব্যবহারা করে এরা দেখতে পায়ভেড়ার পাকস্থলি কয়টি?
ভেড়ার পাকস্থলী কিন্তু ৪টি। প্রত্যেকটি পাকস্থলী-ই খাবার হজমে সহায়তা করেগোঁফ দিয়ে জায়গা মাপে কে?  বিড়াল যে গোঁফ দিয়ে জায়গা মাপে জানতেন কি আগে? হ্যা গোঁফ দিয়ে বিড়াল আগে …